নোয়াখালীর পাতা ডেস্ক:
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরপার্বতী ইউনিয়ন বিএনপির কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্সের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৮জন আহত হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে মানিকপুর গ্রামে অবস্থিত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বাড়ীত এ ঘটনা ঘটে। আহতরা বিএনপির নেতাকর্মীরা হচ্ছেন, ফারুক (২৫), নুর মোহম্মদ (২৭), মিস্টার (২৬) সহ ৮জন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত সূত্রে জানা গেছে, সকাল থেকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের মানিকপুরের গ্রামের বাড়ীতে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরপার্বতী ইউনিয়ন বিএনপির কাউন্সিল বৈঠক চলছিল। ২৭জন কাউন্সিলর গোপন ব্যালটের মাধ্যমে ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করেন।
পরে তিনটি পদে প্রতিদ্বন্দ্বি অপর প্রার্থীরা পরাজিত হওয়ায় কাউন্সিল স্থলে দু’গ্রুপে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে অন্ততপক্ষে ৮জন আহত হয়। সংঘর্ষে গুরুতর আহত ফারুককে কোম্পানীগঞ্জ ন্যাশনাল হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হয় এবং বাকী আহতদের কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
নির্বাচনে কাউন্সিলরদের ভোটে ওবায়দুল হক খান সভাপতি, মিলন সাধারণ সম্পাদক এবং আবুল কাশেম সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।