Up-Elecation

কবিরহাট প্রতিনিধি:

নোয়াখালী: আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার চাপরাশিরহাট ইউনিয়নে বিএনপি মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর গণসংযোগে বাঁধা ও বাড়িতে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।
রোববার দুপুর থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ২ ও ৩নং ওয়ার্ডে দুই দফায় এ ঘটনা ঘটেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, চাপরাশিরহাট ইউনিয়নে বিএনপি মনোনিত ধানের শীষ প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম ছারওয়ার রোববার দুপুর থেকে ২নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করছিলেন। বিকেল তিনটার দিকে বিভিন্ন বাড়িতে গণসংযোগ শেষে নরসিংহপুর এলাকার এক সমর্থকের বাড়িতে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে ৮/১০টি মোটরসাইকেল যোগে কয়েকজন যুবক তাদের পথ রোধ করে গণসংযোগে অংশ নেওয়া বিএনপি মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেন এবং গায়ে হাত তোলার চেষ্টা করেন। যুবকদের আচরণে ধানের শীষ প্রতীকের সমর্থিতরা কোনো প্রতিউত্তর না দেওয়ায় তারা চলে যায়। পরে চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম ছারওয়ারসহ তার সমর্থকরা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে অবস্থিত প্রার্থীর নিজ বাড়িতে চলে আসে। বিকেল সোয়া ৪টার দিকে পুনরায় ২-৩টি মোটরসাইকেল নিয়ে কয়েকজন যুবক ধানের শীষ প্রার্থীর বাড়ির দক্ষিণ গেইটে একটি ককটেল বিস্ফোরণ করে।

বিএনপি মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম ছারওয়ার বলেন, নির্বাচনে তার অবস্থান ভালো থাকায় প্রতিপক্ষ নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থিতরা তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য করার চেষ্টা করছে। তিনি বলেন, এসব ঘটনায় যুবকরা তাকে ও তার সমর্থকদের হুমকি দিয়ে বলেছে এ ইউনিয়নে শুধু মাত্র নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মহি উদ্দিন টিটু ভাইয়ের প্রচারণা চলবে আর কারো নয়।

এ বিষয়ে আ.লীগ মনোনিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মহি উদ্দিন টিটুর মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তার এক সমর্থক ফোনটি রিসিভ করেন। সংবাদিক পরিচয় দেয়া হলে তিনি বলেন, টিটু ভাই এখন ব্যস্ত রয়েছে। ফোনে কথা বলার সুযোগ নেই।

কবিরহাট উপজেলা নির্বাচন অফিসার নুরুজ্জামান বলেন, এ বিষয়ে তার কাছে কোন প্রার্থী বা প্রার্থীর পক্ষে কেউ এখনও (বিকেল পৌনে ৬টা) পর্যন্ত কোনো অভিযোগ করেননি।

প্রসঙ্গত: আগামী ৩১ মার্চ নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে দ্বিতীয় দফায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

জিকেআরটি/ ১৩ মার্চ ২০১৬